ব্রাজিল বিরল তুষারপাতের সাক্ষী হলো। তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে নেমে যাওয়ায় তুষারে ঢেকে যায় বহু জায়গা। অসময়ে তুষারপাতে বিভিন্ন অঞ্চলে শ্বৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। ১৯৬৪ সালের দিকে এমন দৃশ্য দেখতে পায় লাতিন আমেরিকার এই দেশটি। তখন সান্তা ক্যাটরিনা রাজ্যে ৪ দশমিক ৩ ফুট পর্যন্ত তুষার রেকর্ড করা হয়। এবারের আকস্মিক তুষারে অনেককেই পথে নেমে উপভোগ করতে দেখা গেছে। কিন্তু প্রবল ঠান্ডায় তা ভোগান্তিতে গড়াতে সময় লাগেনি। রাস্তায় ঘাট বরফে ঢেকে ব্যাহত হয় যান চলাচল। বুধবার পর্যন্ত দেশটির ৪৩টি শহর প্রবল তুষারপাতে থমকে যায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। আবহাওয়া পূর্ভাবাস বলছে, তাপমাত্রা কমতে থাকায় আরও তুষাপাত হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে দেশটির কৃষিখাত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কনকনে ঠান্ডার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বাতাস। দেশটির আবহাওয়া দফতর বলছে, আগস্টের শুরু পর্যন্ত এ তুষারপাত চলবে। গ্রোসো দুল সুল, সাও পাওলো, মিনাস গেরেইস ও গোয়াস রাজ্যে তাপমাত্রা আরও কমবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তুষার হওয়া অঞ্চলগুলোর বাসিন্দাদের নিরাপদে চলাচলে পরামর্শ দিয়েছে সরকার।